মশা দিবস কবে-মশা দিবসকে সামনে রেখে আমাদের করণীয়

মশা খুবি ছোট একটি প্রাণী, কিন্তু এই মশার অত্যাচারে আমরা অনেক সময় ক্লান্ত হয়ে পরি। এই মশার কারনে আবার অনেক সময় অনেক মানুষের মৃত্যু পর্যন্ত হয়ে থাকে। তাই মশা দেখতে অতি ক্ষুদ্র প্রাণী হলেও এর থেকে রেহাই পাওয়া খুবি কষ্ট সাধ্য ব্যপার। এই মশা খুবি মারাত্মক রোগ বহন করে থাকে।মশা আমাদের জন্যে খুবি হুমকি স্বরূপ, তাই এই মশা নিয়ে আজকে আমরা বিস্তারিত আলোচনা করবো। mosha dibosh kobe

মশা নিয়ে আমরা অনেক সময় অনেক রকম কথা শুনে থাকি, কিন্তু সেই সব কথার মধ্যে অনেক কথাই ভুল। বা আমাদের শোনা কথা, কিন্তু আমরা কি জানি যে এই মশার মাধ্যমে কি বা কি রকম ক্ষতি হতে পারে। মশার মাধ্যমে অনেক রকম রোগের ভাইরাস ছড়িয়ে থাকে। যা ভাইরাসের কারনে প্রতি বছর অনেক লোকের প্রাণ হারায়।

মশার মাধ্যমে কি রোগ ছড়ায়

মশার মাধ্যমে অনেক রকম রোগ ব্যাধি ছড়িয়ে থাকে। আসুন আমরা জেনে নেই কি কি রোগ মশা ছড়িয়ে থাকে। ডেঙ্গু, ম্যালেরিয়া, চিকনগুনিয়া, জিকা ভাইরাস, পিথ জ্বর, জাপানিজ এনসেফালাইটিস,লিম্ফ্যাটিক ফিলারিয়াসিস ইত্যাদি। এই সব কয়টি রোগি খুবি ভয়াবহ মারাত্বক। এই রোগ গুলো যদি মানুষকে আক্রান্ত করে ফেলে তাহলে সেই সব রোগির অবস্থা খুবি খারাপ হয়ে যায়।

বিশ্বের অন্য যে কোনো জীবের চেয়ে বেশি মশা, মানুষের দুর্ভোগের কারণ হিসেবে পরিচিত। আমেরিকান মশা নিয়ন্ত্রণ সমিতি, একটি বৈজ্ঞানিক/শিক্ষামূলক, অলাভজনক পাবলিক সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশন যা তৈরি হয়েছিল ১৯৩৫ সালে, তার তথ্য অনুযায়ী, প্রতি বছর মশা দ্বারা সৃষ্ট রোগের কারণে পৃথিবীতে ১০ লক্ষেরও বেশি মানুষের মৃত্যু হয়।

মশা দিবস কবে

মশা মানুষের জন্যে কত টুকু ঝুকিপুর্ণ যে এই প্রাণীটির জন্যে আলাদা একটি দিবিস ঘোষণা করতে হয়। আমরা এখন মশা দিবস সম্পর্কে জানবো। 

বিশ্বে মশা দিবস পালিত হয় বছরের ২০ আগস্ট। বিশ্বের প্রায় সব দেশেই এই দিবসটি পালন করা হয়। এই দিবসটির কথা প্রথম বলেন স্যার ডোনাল্ড রস ১৮৯৭ সালের ২০ আগস্ট যেদিন তিনি প্রথম আবিস্কার করলেন স্ত্রী অ্যানোফিলিস জাতীয় মশাই মানুষের মাঝে ম্যালিরিয়া রোগ ছড়ায়। 

এই ম্যালেরিয়া রোগের জীবাণু আবিষ্কারের ফলেই তিনি ১৯০২ সালে নোবেল পুরস্কার পান। তৎকালীন ভারতবর্ষে তিনি ২৫ বছর ডাক্টারি করেন। ১৮৮১ থেকে ১৮৯৭ সাল পর্যন্ত তিনি ভারতের বিভিন্ন শহরে তিনি চাকরি করেছেন। এই সময় সেখানে কলেরা ও ম্যালেরিয়ায় অনেক মানুষ প্রাণ হারায়। এই বছর তিনি ২০টি ব্রাউন মশা ধরে এনে ল্যাবে গবেষণা করেন । এবং তিনি আবিষ্কার করেন যে একমাত্র নারী  এনোফিলিস মশাই ম্যালেরিয়া রোগের জন্য দায়ী। 

এর পর থেকে সারা বিশ্বে এই খরটি ছরিয়ে পড়লে এই দিনটিকে বিশ্ব মশা দিবস হিসেবে পালিত হয়ে আসছে। ১৯৩০ সালের ২০ ই আগস্ট আনুষ্ঠানিক ভাবে এই দিনটি পালন করা হয়ে থাকে।

ম্যালেরিয়া থেকে বাঁচতে আমাদের যা করনীয়

মশার হাত থেকে বাঁচতে সারা বিশ্ব জুড়ে অনেক সভা সমাবেশ হয়ে থাকে। এই মশার কারনে প্রতি বছর অনেক মানুষ প্রাণ হারায়। অনেক মানুষের জীবিন অকালে ঝরে যায়। আমরা অনেক সময় এই মশাকে খুবি তুচ্ছ মনে করি। কিন্তু এটা করলে মটেই চলবে না। মশার হাত থেকে বাঁচতে আমাদের সব রকম ব্যবস্থা গ্রহন করতে হবে।

মশার হাত থেকে বাঁচতে আমাদের প্রথম যা করনীয় তা হচ্ছে বাড়ির চার পাশ পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে। কোন জায়গায় কোন ভাবেই পানি জমতে দেয়া যাবেনা। কারন এডিস মশার জন্মস্থান হচ্ছে ময়লা আবর্জনা ও পানি। তাই সম্ভাব্য সকল জায়গা ভাল করে পরীক্ষা করে দেখতে হবে, যেন কথাও কোন রকম পানি জমে থাকতে না পারে।

যেমনঃ ডাবের খোসা, খালি ক্যান, পরিত্যাক্ত টাইয়ার, পরিত্যাক্ত টব সহ বিভিন্ন রকম পাত্র জমে থাকা পানি ফেলে দিতে হবে। এবং পরবর্তিতে যেন আর জমতে না পারে সে জন্যে এই সকল বস্তু সরিয়ে ফেলতে হবে, বা উলটে রাখতে হবে। তাহলেই আমরা এই মশার মারাত্বক থাবা থেকে বাঁচতে পারব।

তবে ব্যাক্তিগত চেষ্টার পাশাপাশি আমাদের সরকারকেও প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা গ্রহন করতে হবে। যেমন অঞ্চল বা মহল্ল্যা ভিত্তিক মশার ঔষুধ স্প্রে করা। যাতে করে মশার বংশবিস্তার কমে যায়। তাছাড়া বিভিন্ন প্রচার প্রচারনার মাধ্যমে মানুষকে সচেতন করতে হবে, যাকে করে মানুষ তাদের বাড়িঘর পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখেন। তাহলেই মশার অত্যাচার কমে যাবে। 

শেষ কথা

প্রিয় পাঠক, আমরা হয়তো অনেকে জানি না যে মশা দিবস রয়েছে,আমাদের সবাইকে এই মশা সম্পর্কে সচেতন করতে হবে। আশা করি আমাদের এই পোষ্টি আপনাদের ভাল লাগবে। আপনাদের সকল মতামত ও পরামর্শ আমাদের কমেন্টে জানাবেন আশা করি, ধন্যবাদ। 

আরো পড়ুন-

পরিবার থেকে দূরে থাকার কষ্ট – স্ট্যাটাস, উক্তি ও কবিতা

পরিবার নিয়ে কষ্টের স্ট্যাটাস,উক্তি ও কবিতা

ক্যালসিয়াম যুক্ত খাবার তালিকা- নিজেকে করে নিন রিচার্জ

১৫ আগস্ট মোট কতজন শহীদ হন-যে ঘটনা সবার জানা দরকার

ইমোশনাল লাভ মেসেজ- লাভ মেসেজ

গ্রামে লাভজনক ব্যবসা-অল্প পুঁজিতে যে সকল ব্যবসা করা যায়

ব্যবসায় উন্নতি করার উপায়, ব্যবসায় উন্নতি করার দোয়া

বাচ্চাদের খিচুড়ি খাওয়ার উপকারিতা-বাচ্চাদের খিচুড়ি রেসিপি

চাপা কষ্টের স্ট্যাটাস,উক্তি, বাণী ও কবিতা

Leave a Comment