খরচ কমানোর উপায়- জেনে নিন খরচ কমানোর সেরা ১০ উপায়

মানুষ টাকা উপার্জন করেন খরচ করার জন্য। যাতে তাদের দৈনন্দিন চাহিদা মেটাতে পারেন সে জন্যে মানুষ টাকা উপার্জন করে থাকেন। এই সব কারন ছাড়াও রয়েছে আরো একটি কারন আর তা হচ্ছে ভবিষ্যৎ এর জন্যে কিছু টাকা জমানো। কারন মানুষের অনেক রকম দরকার হতে পারে, রোগ শোকের কারনে অনেক সময় অনেক টাকার দরকার হয়ে থাকে।khoroc komanor karjokori upay

তাই এই সকল কারনে আমরা টাকা উপার্জন করে থাকি।আর জমিয়ে থাকি।কিন্তু আমাদের মধ্যে কেউ কেউ রয়েছেন যারা তাদেদ প্রযোজনের থাকে বেশি টাকা খরচ করে থাকেন, যা কিনা তাদের দরকার নেই। আর এই দরকার ছাড়া টাকা খরচ করাকে বলা হয় অপচয়। এই অপচয় রোধ করা সবার উচিত। তাহলেই আমরা পারবো আমাদের লক্ষে পৌছতে। 

বাড়তি খরচ থেকে মুক্তি পাওয়ার উপায় 

আমাদের ভিতরে অনেকে রয়েছেন যাঁদের খরচ অনেক বেশি। কারনে অকারনে তাঁরা তাদের অর্থ খরচ করে থাকেন। আজকের এই পোস্ট তাদের জন্যে। আসুন তাহলে দেখে নেয়া যাক খরচ কমানোর কিছু কার্যকরি উপায়

১। যাতায়াত খরচ কমানো

আমরা যারা অফিস করি বা বাহিরে কাজে যাই তাদের এই খরচের দিকে খেয়াল রাখতে হবে। অফিস বা কর্মসংস্থান যদি কম দুরুত্ব হয়ে থাকে তাহলে পায়ে হেটে যাওয়ার অভ্যাস করতে হবে। আর যদি রিকসার দুরুত্ব হয়ে থাকে তাহলে আপনি বাই সাইকেল ব্যবহার করতে পারেন। এতে করে আপনার রিকশা ভাড়াটা বেচে যাবে। আর মাসের শেষে আপনার বড় একটা ফিগার আপনার বেচে যাবে।

২। বাহিরের খাবার না খাওয়া

আপনার যদি বাহিরের খাবার খাওয়ার অভ্যেশ থাকে তাহলে আপনাকে এই অভ্যাস ত্যাগ করতে হবে। তাহলে আপনি দুই ধরনের সমস্যা থেকে বাঁচতে পারবেন। তাহলো- শরীর ভাল থাকবে, কারন বাহিরের খাবার খেলে শরীরে নানা রকম সমস্যা হয়ে থাকে। পেটে অনেক রকম সমস্যা হয়ে থাকে।

 তখন আবার ডাক্তার খরচ বেড়ে যায়। আর অন্য সুভিধা হচ্ছে আপনার খরচ কমে যাবে। বাহিরের খাবার নিয়মিত খেলে আপনার অনেক গুলো টাকা খরচ হয়ে যায় । তাই আপনাকে বাহিরের খাবার খাওয়া থেকে বিরত থাকতে হবে।

৩। খরচের হিসেব করা

আপনি যদি আপনার খরচের হিসেব মাসের শুরু থেকে করে ফেলেন তাহলে আপনি মাসে কতো টাকা খরচ করেন তা আপনি যানতে পারবেন, আর আপনি সেই অনুযায়ী একটা বাজেট করতে পারেন, যে আপনার এই মাসে কতো টাকা খরচ হবে। আর সেই হিসেব মতো চললেই আপনার অনেক বড় একটা টাকা বেচে যাবে। তাই সবাইকেই খুব খরচ করে হিসেব করতে হবে। তাহলেই আপনি আপনার বাড়তি খরচের হাত থেকে বাঁচতে পারবেন।

৪। অপ্রযোজনীয় বাজার না করা

আপনার যদি খরচ অনেক বেশি হয়ে থাকে তাহলে আপনাকে কিছু নিয়ম নীতি মেনে চলতে হবে, তাহলে আপনি আপনার কিছু বাড়তি খরচ বাচাতে পারবেন। আমাদের আয়ের অনেক বড় একটা অংশ খরচ হয়ে যায় বাজারের কারনে। আর এই বাজার করার সময় আপনাকে ব্যবহার করতে হবে একটু বুদ্ধি, যেমন আপনি প্রযোজনীয় বাজার করবেন, কিন্তু অপেক্ষাকৃত কম প্রযোজনীয় বাজার করা থেকে বিরত থাকুন।

khoroc komanor karjokori upay

৫। কেনাকাটায় প্রতিযোগিতা এড়িয়ে চলা 

এখনকার দিনে অনেকে কেনা কাটা করেন অন্যের কেনা কাটা দেখে। তাদের মূল লক্ষ্য থাকে অন্যকে দেখানো। আর এভাবেই আপনার অনেক বড় অবচয় হয়ে যায়। আপনি যদি আপনার দরকারি পণ্য ক্রয় করেন তাহলে আপনার অবচয় অনেক কম হয়। আর এভাবেই আপনার অনেক বড় একটা টাকা বেচে যায়।

৬। প্রতি মাসে বেড়াতে যাওয়া থেকে বিরত থাকুন

অনেকের অনেক রকম অভ্যাস থাকে, তেমনই অনেকের থাকে বেড়ানোর অভ্যাস। এখনকার কিনে ঘুরা ঘুরি করা অনেক ব্যায়বহুল। তাই ঘন ঘন ঘুরাঘুরি থেকে বিরত থাকুন। একবার বেড়ানোর পরে মাঝে বড় একটা বিরিতি নিয়ে আবার বের হন। তাহলে আপনার অনেক বড় একটা টাকা সেফ করতে পারবেন।

৭। বাচ্চাদের অপ্রযোজনীয় আবদার পূরণ থেকে বিরত থাকুন

আবার ছেলে মেয়েরা অনেক সময় অপ্রযোজনীয় আবদার করে থাকে, তাদের এই সকল আবদার তাদের জন্যে যেমন ক্ষতিকর , তেমন আমাদের জন্যেও ক্ষতিকর। তাই বাচ্চাদের এই সকল চাহিদা পুরন না করে তাদের সুন্দর করে বুঝিয়ে বিরত রাখতে হবে। তাহলে আপনার বাচ্চা ভালো থাকবে, সাথে আপনার টাকা বেচে যাবে।

৮। পারিবারিক অনুষ্ঠান ঘরোয়া ভাবে করার চেষ্টা করুন

আবার সবার পরিবারেই কম বেশি অনুষ্ঠান থাকে, আর সেই সকল অনুষ্ঠনে অনেক খরচ হয়ে থাকে। এখন নিত্য প্রযোজনীয় দ্রব্য অনেকের হাতের নাগালের বাহিরে চলে গেছে। তাই এই সময় আপনাকে এই সকল সিদ্ধান্ত খুব হিসেব করে নিতে হবে। এই সকল অনুষ্ঠান বড় না করে ছোট করে করে খরচটা অনেক আংশেই কমানো যায়।

৯। বিদ্যুৎ, পানি ও গ্যাসের খরচ কমিয়ে আনা

আমাদের সবার বাড়িতে এখন প্রচুর পরিমাণে বিদ্যুৎ এর ব্যাবহার হয়ে থাকে, এই সকল বৈদ্যুতিক যন্ত্রাংশ ব্যাবহার করা কমিয়ে দিতে হবে। অপ্রযোজনে লাইট ও ফ্যান ব্যাবহার থেকে বিরত থাকতে হবে। পানি ব্যাবহারে খুবি সচেতন হতে হবে। তাহলে আপনার এই সকল বিল থেকে অনেকাংশে মুক্ত হতে পারবেন। আর এই ভাবে আপনি অনেক বড় একটা খরচের হাত থেকে বেচে যেতে পারেন।

১০। অনলাইন কেনা কাটায় সাবধান হওয়া

আপনার যদি অনলাইনে কেনাকাটায় অভ্যাস থাহলে আরো সচেতন হতে হবে। কারন অফলাইন থেকে অনলাইনে জিনিস পত্রের দাম অনেক বেশি হয়ে থাকে। আর সেখানে যাচাই করার কোন অপশন থাকে না। তাই অনলাইনে কেনা কাটা করলে খরচ বেশি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

শেষ কথা

প্রিয় পাঠক, আশা করি আমাদের পোষ্টি আপনাদের ভালো লাগবে। আমরা এই পোষ্টের মাধ্যমে কিভাবে বাড়তি খরচ কমাতে হয় তার কিছু উপায় নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। এই ভাবে চললে আশা করা যায় আমাদের খরচ অনেক কমে যাবে। আমাদের পোষ্টি যদি আপনাদের ভালো লেগে থাকে তাহলে আমাদের সাথেই থাকুন ধন্যবাদ।

আরো পড়ুন-

শ্রমিকের অধিকার প্রতিষ্ঠায় ইসলাম- যা জানা আমাদের দরকার

মেয়েদের ঘরে বসে আয় করার কিছু দুর্দান্ত উপায়

জীবনে সফল হওয়ার উপায়

পায়ের গোড়ালি ফাটা দূর করার ঘরোয়া উপায়

রাগ নিয়ন্ত্রণ করার উপায়- রাগ নিয়ন্ত্রণ করার ১০ টি সেরা উপায়

নিজেকে পরিবর্তন করার উপায়- জীবনকে সুন্দর করবেন যে ভাবে

খারাপ থেকে ভালো হওয়ার উপায়- আলোকিত মানুষ হওয়ার উপায়

ইতালি ভিসা খরচ – চার লাখ লোক নেবে ইতালি

ক্ষুদ্র ব্যবসার তালিকা – ১০ টি লাভজনক ব্যবসার আইডিয়া

Leave a Comment