ইন্টারন্যাশনাল ড্রাইভিং লাইসেন্স করার নিয়ম

আমরা সবাই চাই যে আমাদের একটা ড্রাইভিং লাইসেন্স থাকুক। এটা কোন বিলাসিতা নয়, এটা খুবি জরুরী একটা বিষয় যে সবাই ড্রাইভিং লাইসেন্স থাকবে। আমাদের সবাই এখন কম বেশি এই বিষয়ে জানে যে একজন সচেতন মানুষের একটা ড্রাইভিং লাইসেন্স থাকা খুবি দরকার। আমাদের দেশে অনেক পেশাদার ড্রাইভার রয়েছেন যাঁদের কোন ধরনের ড্রাইভিং লাইসেন্স নেই। international driving license korar niyom

আর তাঁরা দেদারছে ছোট বড় গাড়ি চালাচ্ছেন প্রশাসনের নাকের ডগা দিয়ে। আর এদের কারনেই এখন দেশে অনেক বেশি সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে যাচ্ছে। আর ঝরে যাচ্ছে অনেক সাধারন মানুষের প্রাণ। এই সকল সমস্যার হাত থেকে রক্ষা পেতে আমাদের দেশের সকল গাড়ি চালকের বাধ্যতা মূলক ড্রাইভিং লাইসেন্স করতে হবে।

অনেকে আবার ড্রাইভিং এর কাজের উপর বিদেশে পারি জমাতে চান, তাদের জন্যে ড্রাইভিং লাইসেন্স করাটা আরো বেশি জরুরী। এই পেশায় বিদেশে অনেক চাকুরীর সুযোগ রয়েছে। তাই বিদেশে গাড়ী চালাতে দরকার ইন্টারন্যাশনাল ড্রাইভিং লাইসেন্স। তাই আমরা এখন জানবো যে কিভাবে আপনি আপনার ইন্টারন্যাশনাল ড্রাইভিং লাওইসেন্স করতে পারেন। আসুন তাহলে দেখে নেই।

বাংলাদেশ থেকে ইন্টারন্যাশনাল ড্রাইভিং লাইসেন্স করতে হলে যা দরকার

আপনি যদি বাংলাদেশ থেকে আপনার ইন্টারন্যাশনাল ড্রাইভিং লাইসেন্স করতে চান তাহলে আপনাকে কিছু ধাপ পার করতে হবে। করতে হবে কিছু শর্ত পূরণ। তাহলেই আপনি পেতে পারেন আপনার কাক্ষিত ইন্টারল্যাশনাল ড্রাইভিং লাইসেন্স।

ধাপ ১: আবেদন ফর্ম পূরণ

অটোমোবাইল এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (AAB)-এর ওয়েবসাইট থেকে আন্তর্জাতিক ড্রাইভিং লাইসেন্সের আবেদন ফরম ডাউনলোড করে পূরণ করতে হবে। আবেদন ফর্ম পূরণের সময় নিম্নলিখিত তথ্যগুলি অবশ্যই উল্লেখ করতে হবে:

  • আবেদনকারীর নাম, ঠিকানা, জন্ম তারিখ, জাতীয়তা, ইমেইল ঠিকানা, মোবাইল নম্বর
  • ড্রাইভিং লাইসেন্সের নম্বর, মেয়াদ শেষ হওয়ার তারিখ
  • আবেদনকারীর ছবি (পাসপোর্ট সাইজের)

ধাপ ২: প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সংগ্রহ

আন্তর্জাতিক ড্রাইভিং লাইসেন্সের জন্য নিম্নলিখিত কাগজপত্রগুলি সংগ্রহ করতে হবে:

  • পূরণকৃত আবেদন ফর্ম
  • জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি
  • ড্রাইভিং লাইসেন্সের ফটোকপি
  • ৩টি পাসপোর্ট সাইজের ছবি
  • আবেদন ফি (১,৮০০ টাকা)

jene nin license korar niyom

ধাপ ৩: আবেদন জমা

প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সহ আবেদন ফর্ম অটোমোবাইল এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (AAB)-এর প্রধান কার্যালয়ে জমা দিতে হবে।

ধাপ ৪: আবেদনপত্র যাচা

AAB-এর কর্মকর্তারা আবেদনপত্র যাচাই করে লাইসেন্স ইস্যু করবেন। আবেদনপত্র যাচাইয়ে সাধারণত ১-২ দিন সময় লাগে।

ধাপ ৫: লাইসেন্স গ্রহণ

আবেদনপত্র যাচাইয়ের পর AAB-এর কর্মকর্তারা আবেদনকারীকে একটি নির্দিষ্ট তারিখে লাইসেন্স গ্রহণের জন্য ডাকবেন। নির্দিষ্ট তারিখে AAB-এর প্রধান কার্যালয়ে গিয়ে লাইসেন্স গ্রহণ করতে হবে।

আন্তর্জাতিক ড্রাইভিং লাইসেন্সের মেয়াদ

আন্তর্জাতিক ড্রাইভিং লাইসেন্সের মেয়াদ ১ বছর। তবে, আবেদনকারীর মূল ড্রাইভিং লাইসেন্সের মেয়াদ যদি ১ বছরের কম হয়, তাহলে আন্তর্জাতিক ড্রাইভিং লাইসেন্সের মেয়াদও মূল ড্রাইভিং লাইসেন্সের মেয়াদের সমান হবে।

আন্তর্জাতিক ড্রাইভিং লাইসেন্সের ফি

আপনাকে এই লাইসেন্সটি পেতে হলে আপনাকে কিছু নির্দিষ্ট পরিমাণ টাকা খরচ করতে হবে। এই টাকাটা আপনি যে কোন সরকারি ব্যাংকের মাধ্যমে বা বিভিন্ন মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে পরিশোধ করতে পারবেন। আসুন তাহলে জেনে নেয়া যাক ফির পরিমাণ।

আন্তর্জাতিক ড্রাইভিং লাইসেন্সের ফি ১,৮০০ টাকা। এই ফি AAB-এর প্রধান কার্যালয়ে নগদ বা ব্যাংক ড্রাফ্টের মাধ্যমে প্রদান করা যাবে।

আন্তর্জাতিক ড্রাইভিং লাইসেন্সের বৈধতা

আন্তর্জাতিক ড্রাইভিং লাইসেন্স ১৮৮টি দেশে বৈধ। তবে, কিছু দেশে আন্তর্জাতিক ড্রাইভিং লাইসেন্সের পাশাপাশি মূল ড্রাইভিং লাইসেন্সও প্রয়োজন হতে পারে। তাই, আন্তর্জাতিক ড্রাইভিং লাইসেন্স ব্যবহারের আগে নির্দিষ্ট দেশের আইনকানুন সম্পর্কে জেনে নেওয়া উচিত।

শেষ কথা

প্রিয় পাঠক, আশা করি আমাদের পোষ্টি আপনাদের ভালো লাগবে। আমরা এই পোষ্টের মাধ্যমে আপনাদের কিছু তথ্য তুলে ধরতে চেষ্টা করেছি, যাতে আপনাদের হয়রানীর শিকার হতে না হয়। আমাদের এই পোষ্টি যদি আপনাদের ভালো লেগে থাকে তাহলে আমাদের সাথেই থাকুন, ধন্যবাদ। 

আরো পড়ুন-

বাংলাদেশের বর্তমান রিজার্ভ কত ২০২৩

পানি পান করার সঠিক নিয়ম- আসুন নিয়ম মেনে পানি পান

যুক্তি দিয়ে কথা বলার উপায়- কথার মাধ্যমে মন জয় করার উপায়

ভালো ছাত্র হওয়ার উপায়- যা ১০০ ভাগ কার্যকরী

খরচ কমানোর উপায়- জেনে নিন খরচ কমানোর সেরা ১০ উপায়

শ্রমিকের অধিকার প্রতিষ্ঠায় ইসলাম- যা জানা আমাদের দরকার

মেয়েদের ঘরে বসে আয় করার কিছু দুর্দান্ত উপায়

জীবনে সফল হওয়ার উপায়

পায়ের গোড়ালি ফাটা দূর করার ঘরোয়া উপায়

Leave a Comment