গরমে নবজাতক শিশুর যত্ন-শিশুকে সুস্থ রাখতে মেনে চলুন এই টিপস গুলো

দেশে এখন চলছে প্রচুর তাপদাহ, সংগে যুক্ত হয়েছে আসহনিয় গরম। তার মধ্যে আবার চলছে পাল্লা গিয়ে লোডশেডিং। সব মিলিয়ে আমাদের দেশে এখন চলছে খুবি যন্ত্রনাদায়ক অবস্থা। আমারা বড়রা অনেক ভাবেই নিজেকে খাপ খাইয়ে নিতে হিমসিম খেয়ে যাচ্ছি, তাহলে একবার ভাবুন তো আমাদের শিশুদের কি অবস্থা। তাঁরা গরমে অনেক সষ্ট করে থাকে, কারন তাঁরা তো আর বলতে পারে না যা তাদের এখন কেমন লাগছে। gorome nobojatok shishur jotno

তাই তাদের ব্যাপারে আমাদের আরো বেশি সতর্ক হতে হবে।আর  এই গরমে তাদের নিতে হবে আলাদা যত্ন। গরমে নবজাতক শিশুকে কিভাবে যত্ন নিতে হবে আজকে আমরা সে বিষয় নিয়েই আলোচনা করবো। শিশু বিশেষজ্ঞ ডাক্তারদের মতে গরমে শিশুর বাড়তি যত্ন না নিলে নানা রকম অসুখ বিশুখ হতে পারে। যেমন ডায়রিয়া, ঠান্ডা-জ্বর, এবংকি টাইফয়েডের প্রাদুর্ভাব রয়েছে। তাই আসুন আমরা জেনে নেই এই গরমে শিশুদের যত্ন কিভাবে নেয়া উচিত।

গরমে শিশুদের কি কি সমস্যা হতে পারে 

এখন আমরা জানবো এই গরমে শিশুদের কি কি সমস্যা হতে পারে। আমরা জানি যে প্রতি বছর গরমে অনেক শিশু রোগে আক্রান্ত হয়ে থাকে, আমরা সব সময়ই চাই যেন আমাদের শিশু সব সময় সুস্থ ও সুন্দর থাকে। আমরা তাদের জন্যে সব কিছু করতে পারি, তাদের সুস্থতা আমাদের এক মাত্র লক্ষ্য। তাই আমাদের আগে জানতে হবে কিরকম সমস্যা হতে পারে, তাহলেই আমরা সে অনুপাতে তাদের যত্ন নিতে পারব। আসুন তাহলে জেনে নেয়া যাকঃ 

  1. ডায়রিয়া-আমাশয়।
  2. ঠান্ডা-জ্বর,কাশি।
  3. শরীরে নানা রকম র‍্যাশ দেখা দিতে পারে।
  4. টাইফয়েড ও দেখা দেয় কক্ষনো।
  5. প্রচুর গরম থেকে ঠান্ডা লেগে তা নিউমোনিয়া পর্যন্ত হতে পারে।

gorome shishuke valo rakhar upay

গরমে সিশুকে সুস্থ রাখার উপায়

গরমে বড়দের যেমন কষ্ট হয় ,তেমন ছোটদেরো কষ্ট হয়,তাই তাদের কষ্ট কমাতে বা তাদেরকে আরামে রাখতে আমাদের কিছু টিপস মেনে চলতে হবে। আসুন তাহলে যেনে নেই সেই টিপস গুলোঃ

১। জামাকাপড়,

 গরমে শিশুদের সবচেয়ে যে বিষয়ে খেয়াল রাখতে হবে তা হল তাদের জামাকাপড়ের উপর। কারন তাদেরকে জামাকাপড় পরানোর সময় মনে রাখতে হবে যে , সে কাপড় যেন খুবি আরামদায়ক ও নরম হয়। কারন নরম কাপর নাহলে তাদের গরম আরো বেড়ে যেতে পারে। এবং যতটা সম্ভব ছোট কাপড় পরানোর চেষ্টা করতে হবে।

২। খাবার

গরমে শশুদের খাবের প্রতি খুব বেশি নজর রাখতে হবে, যে শিশু বুকের দুধ খায় তাদের একটু গন গন দুধ দিতে হবে, কারন গরমে শিশুদের গলা বড় দের মতি শুকিয়ে যায়। আর যারা দুধের পাশাপাশি বাড়তি খাবার খায় তাদেরকে নরম খাবার খাওয়ানোর চেষ্টা করতে হবে। কারন খাবারে সমস্যার কারনে শিশুদের ডায়রিয়া হতে পারে। শিশুদের খাবারে চেষ্টা করতে হবে মসলা কম পরিমানে দেয়ার। কারন মসলার কারনে পেটে সমস্যা হয়ে থাকে।

৩। ঘরের তাপমাত্রা

গরমে শিশুদেরকে ঘরে রাখার চেষ্টা করতে হবে। এবং সেই ঘরের তাপমাত্রা সহনীয় পর্যায়ে রাখতে চেষ্টা করতে হবে। বিশেষজ্ঞ দের মতে শিশুদের ঘরের তাপমাত্রা হবে ২৬ ডিগ্রি । যাতে করে তাদের গরমে বাঁ ঠান্ডায় সমস্যা না হয়। 

৪। বাহিরে যাওয়া থেকে বিরত থাকা

এখন দিনের বেলায় বাহিরের তাপমাত্রা খুবি বেশি থাকে, যা ৩৭-৪০ ডিগ্রি পর্যন্ত হয়ে থাকে। এই তাপে নবজাতক শিশুকে বাহিরে নেয়া থেকে বিরত থাকতে হবে। এইত বেশি সূর্যের তাপ শিশুর ত্বকের জন্যে খুবি ক্ষতিকর। এবং যন্ত্রণা দায়ক। তাই আমাদের এই ব্যাপারে খুবি সচেতন থাকতে হবে।

৫। শিশুকে জোড় করে খাওয়ানো

অনেক মায়েরা মনে করে থাকেন যে শিশুকে যত বেশি খাওয়ানো যাবে শিশু ততো বেশি ভাল থাকবে , কিন্তু না ধারনাটি একেবারেই ভুল। কারন বেশি খাওয়ার কারনে তাদের অসস্থি হয়ে থাকে, যা গরমের দিনে কয়েকগুণ বেড়ে যেতে পারে। এবং শিশু বমি করতে থাকে, তাই তাদের পরিমান মত খাবার দিতে হবে।

৬। সরাসরি ফ্যানের নিচে না রাখা

গরম বেশি হলে আমরা মনে করি শিশুকে বেশি বাতাশে রাখতে হবে, তাই আমরা তাদেরকে সরাসরি ফ্যানের নিচে রাখি, যা মোটেও উচিত নয়। এতে তাদের নিঃশ্বাস নিতে কষ্ট হয়। তাই তাদের মৃদু বাতাশে রাখতে হবে। যাতে করে গরম না লাগে, আবার বাতাসে কষ্ট না হয়।

৭। ঘন ঘন পানি পান করানো

গরমে শিশুদের গলা শুকিয়ে যায়, তাই তাদেরকে ঘন ঘন পানি পান করাতে হবে। যে শিশু শুধু বুকের দুধ পান করে থাকে তাকে একটু পর পর দুধ পান করতে দিতে হবে। তা না হলে তাদের শরীরে পানি শূন্যতা দেখা দিতে পারে। আর পানি শূন্যতা থেকে দেখা দিতে পারে কোষ্ঠকাঠিন্যর মত রোগ। তাই তাদের পানির ব্যাপারে খুবি সচেন থাকতে হবে।

৮। শরীর পরিষ্কার রাখা

শিশুদের শরীর পরিষ্কার রাখার চেষ্টা করতে হবে। কারন তাঁরা তাদের শরীর খুব তাড়াতাড়ি অপরিষ্কার করে ফেলে। তাদের প্রতিদিন ১ বার করে ভাল করে গোছল করিয়ে দিতে হবে। এবং ২-৩ বার ভাল করে নরম কাপর দিয়ে শরীর মুছিয়ে দিতে হবে। এতে করে শরীর পরিষ্কার ও ঠান্ডা থাকবে।

শেষ কথা

আমরা সব সময়ই চেষ্টা করি যেন আমাদের শিশু ভাল সুস্থ থাকে, আমরা তাদের ভাল সব সময়ই চেয়ে থাকি। কিন্তু এই গরমে তাদের প্রতি আমাদের বাড়তি নজর রাখতে হবে। প্রিয় পাঠক, আশা করি আমাদের এই পোষ্টি আপনাদের ভাল লেগেছে। এরকম আরো সুন্দর সুন্দর পোষ্ট পেতে আমাদের সাথেই থাকুন। 

আরো পড়ুন-

বাংলাদেশে লোডশেডিং এর কারণ কি- লোডশেডিং থেকে রক্ষার উপায়

আগুন নিয়ে ক্যাপশন,স্ট্যাটাস ও কবিতা

বিকাশের টাকা দেখার নিয়ম

অল্প পড়ে ভাল রেজাল্ট করার উপায়

দায়িত্ব নিয়ে উক্তি, স্ট্যাটাস

পড়ায় মনোযোগ ফিরিয়ে আনতে ১০ টি টিপস

ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট দেখার নিয়ম

নতুন চেক বই তোলার নিয়ম

Leave a Comment