ক্যালসিয়াম যুক্ত খাবার তালিকা- নিজেকে করে নিন রিচার্জ

মানুষকে বাঁচতে হলে দরকার খাবার, কিন্তু তা হতে হবে স্বাস্থকর। মানুষকে ভাল রাখতে খাবারের যেমন কোন  বিকল্প নেই তেমন খাবারের কারনেই মানুষের শরীরের বাসা বাধে হরেক রকমের রোগ ব্যাধি। তাই আমাদের সবাইকে খাবার খাওয়ার সময় খুবি সচেতন হতে হবে। তা না হলে হতে পারে হিতে বিপরীত। calcium zukto khabar talika

তাই আমরা কি খাচ্ছি, কখন খাচ্ছি তা খুবি গুরুত্বপুর্ন। আমাদের জেনে বুঝে সকল খাবার খেতে হবে। তাহলেই আমরা খাবার থেকে প্রয়োজনীয় উপকরন পাব। এখন আসুন আমরা জেনে নেই ক্যালসিয়াম যুক্ত খাবারের অভাবে শরীরে কি কি সমস্যার সৃষ্টি হয়। কারন আমরা যদি রোগের লক্ষণ জানতে পারি তাহলে সেই রোগের চিকিৎসা করতে আমাদের কোন প্রকার বেগ পেতে হবে না।

ক্যালসিয়ামের অভাব বুঝবেন যে লক্ষণ দেখে

মানব দেহে ক্যালসিয়াম খুবি গুরুত্বপূর্ন একটি উপাদান। ক্যালসিয়ামের অভাবের কারনে শরীরে নানা রকম সমস্যা হয়ে থাকে। আমরা আমাদের শরীরে কোন রকম সমস্যাই আশা করি না। কিন্তু আমাদের অজান্তে অনেক সময় অনেক রকম সমস্যা হয়ে থাকে। কিন্তু আমরা যদি এক্টূ সচেতন হই তাহলে এই সকল সমস্যা সমাধান করা তেমন কঠিন কোন কাজ নয়।

শুধু আমাদের খাবারের তালিকাটা একটু পরিবর্তন করতে হবে। কিছু খাবার যোগ করতে হবে, আর কিছু খাবার আমাদের তালিকা থেকে বাদ দিতে হবে। তাহলেই আমরা আমাদের খাদ্য উপাদান জনিত সমস্যা সমাধান করতে পারব। আসুন তাহলে দেখে নেয়া যাক লক্ষণ গুলোঃ

১। পেশিতে ব্যাথা

ক্যালসিয়ামের অভাবে আমাদের শরীরে যে সকল সমস্যা হয় তার মধ্যে অন্য তম একটি সমস্যা হচ্ছে পেশিতে ব্যাথা অনুভূত হওয়া। এই ব্যাথার কারনে আমাদের শরীরে অনেক রকম সমস্যা হয়ে থাকে। পেশিতে ব্যাথার পাশাপাশি শরীরের অন্য স্থানেও ব্যাথা অনুভূত হয়,যেমনঃ হাত,পা ব্যাথা, অল্প হাঁটা হাটি করেই ক্লান্ত হয়ে যাওয়া। পায়ের পেশী সংকুচিত হওয়া ইত্যাদি লক্ষণ দেখা দিতে পারে।

২। হাড়ের ক্ষয়

ক্যালসিয়ামের অভাবে যে হাড়ের ক্ষয় হয় তা হয়তো অনেক মানুষ জেনে থাকেন। কিন্তু এই সমস্যার তেমন কোন সমাধান করার জন্যে তাঁরা খুব বেশি তৎপর হয় না। হাড়ের ক্ষয়ের কারনে আমাদের শরীরে অনেক রকম সমস্যা হয়, যেমন। হাড়ে প্রচুর ব্যাথা হয়। হাত পা নাড়ানোর মত অবস্থাও থাকে না । আমাদের কোন রকম নড়াচড়াও করা যায় না তখন। 

এই সমস্যাটা হয় কমরের হাড়ে ও মেরুদণ্ড এর হারের মাঝে। তখন রোগীর খুব সমস্যা হয় চলাফেলা করতে। এ ছাড়া পুরো শরীরে অসারতা অনুভব করা। শরীরের মাঝে ক্লান্তি অনুভব করা। হাতের ও পায়ের নখ অনেক ভহঙ্গুর দেখা যায়। এই সমস্যা গুলো দেখা দিলেই মনে করতে হবে যে এটা ক্যালসিয়ামের অভাব জনিত সমস্যা।

৩। খুব অল্প চাপে হাড় ভেঙে যাওয়া

খুব অল্প চাপে হাড় ভেঙে যেতে পারে, কারন ক্যালসিয়ামের অভাবের কারনে হাড় খুবি দুর্বল হয়ে পরে। এছাড়াও হাড়ের ক্ষয় জনিত সমস্যা, দাঁতের নানা রকম সমস্যা, যেমন খুব অল্প বয়সে দাঁত পরে যাওয়া, দাঁতের মারি ফুলে যাওয়া, দাঁত ব্যাথা করা থেকে আরো অনেক রকম সমস্যা হতে পারে। তাই এইব সকল লক্ষণ গুলোর দিকে বিশেষ নজর রাখতে হবে।

৪। কম পরিশ্রমে বেশি ক্লান্ত হয়ে যাওয়া

ক্যালসিয়ামের অভাবের কারনে মানুষ খুব অল্প কাজ করে হাপিয়ে উঠে, কারন তখন শরীরের সকল হাড় খুবি দুর্বল থাকে, শরীরের ভার তখন শরীর খুব বেশি সময় নিতে পারে না। তাই খুব কম কাজ করে অনেক বেশি ক্লান্ত হয়ে পরে মানুষ।

৫। পেশিতে খিচুনি অনুভূত হওয়া

পেশিতে খিচুনি অনুভূত হওয়া খুব কমন একটা লক্ষণ। কারন শরীর দুর্বল থাকলে খুব সহজেই শরীরের পেশী গুলো খিচুনি পারতে থাকে। আমরা হয়তো অনেকেই এই ব্যপারটা লক্ষ্য করে থাকবো। তাই আমরা এই লক্ষণটি কেও আমরা ক্যালসিয়াম ঘাটতির লক্ষণ হিসেবে ধরে নিলাম।

৬। সৃতিশক্তি লোভ পায়

শরীরের যদি ক্যালসিয়ামের ঘাটতি খুব বেশি থাকে তাহলে তাদের ব্রেনের উপরো প্রভাব পরে। যাদের শরীরে ক্যালসিয়ামের ঘাটতি রয়েছে তাদের অনেক কিছুই মনে থাকে না, তাঁরা আস্তে আস্তে সৃতিশক্তি হারিয়ে ফেলতে থাকে। তাই এই ব্যাপারে আমাদের অনেক বেশি সিরিয়াস থাকতে হবে।

যে সকল খাবার খেলে ক্যালসিয়ামের ঘাটতি পূরণ হবে

মানব দেহে যে সকল উপাদানের দরকার রয়েছে তা সৃষ্টি কর্তা প্রকৃতির মাঝে দিয়ে দিয়েছেন। আমাদের শুধু করনীয় হচ্ছে তা দেখে দেখে আহরন করে খাওয়া বাঁ ব্যাবহার করা। আমাদের শরীরের যে সকল খাদ্য উপাদান প্রোয়োজন রয়েছে তার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে ক্যালসিয়াম । এই ক্যালসিয়ামের অভাবের কারনে আমাদের শরীরের যে সকল ক্ষতি হতে পারে তা আমরা উপরে আলচনা করেছি।

এখন আসুন এই সকল সমস্যার প্রতিকার নিয়ে কথা বলি। আমাদের খাবারের তালিকা অনুযায়ী আমরা খুবি পরিমান মত খাদ্য গ্রহন করবো। তবে আমরা চেষ্টা করবো সকল প্রয়োজনীয় উপাদানের খাবার যেন আমাদের মিলের মধ্যে থাকে। তাহলে পরিমানে কম হলেও তা শরীরের জন্যে খুবি প্রয়োজন। 

আসুন তাহলে দেখে নেয়া যাক কোন কোন খাবারে ক্যালসিয়াম খুবি বেশি পরিমানে থাকে। 

দুধ, পনির, ঘী সহ সকল প্রকার দুগ্ধ জাতীয় খাবারে প্রচুর পরিমানে ক্যালসিয়াম থাকে, এই সকল খাবার আমাদের প্রতিদিনের খাবারের রুটিনে কম করে হলেও রাখা উচিত।

বাদাম জাতীয় খাবারে প্রচুর পরিমানে ক্যামসিয়াম রয়েছে, যেমন কাঠ বাদামে রয়েছে প্রচুর পরিমানে ক্যালসিয়াম, প্রতি ১০০ গ্রাম কাঠ বাদামে রয়েছে প্রায় ২৬৬ মিলিগ্রাম ক্যালসিয়াম। 

তাই ক্যালসিয়ামের ঘাটতি পূরণে বাদাম খাওয়ার কোন বিকল্প নেই। তাছাড়া সামুদ্রিক মাছে রয়েছে প্রচুর পরিমানে ক্যালসিয়াম।

আমরা সয়াবিন থেকেও আমাদের প্রয়োজনীয় ক্যামসিয়াম গ্রহন করতে পারি, ১ কাপ পরিমান সয়াবিনে রয়েছে প্রায় ১৭০ মিলিগ্রাম ক্যালসিয়াম। তাই প্রিতিদিনের খাবার তালিকায় আমাদের ১ কাপ পরিমান সয়াবিন রাখা যেতে পারে।

হাড়ের ক্ষয় জনিত সমস্যায় টক জাতীয় ফলে অনেক উপকার রয়েছে। আমরা লেবু, আমলকি, মাল্টা, জাম্বুরা, কামরাঙ্গা সহ সকল প্রকার টক জাতীয় ফল খেটে পারি যা আমাদের চারপাশে প্রচুর পরিমানে পাওয়া যায়। এই সকল ফল ক্যালসিয়াম ঘাটাতিতে সহায়ক ভূমিকা পালন করে থাকে।

সুষম খাবার তালিকা তৈরি কারা

আমাদের সুস্থ থাকতে হলে দরকার প্রয়োজনীয় খাদ্য উপাদান, আর সকল প্রকার খাদ্য উপাদান আমাদের সঠিক ভাবে নিতে হলে আমাদেরকে একটি সুন্দর সুষম খাবার তালিকা তৈরি করতে হবে। যার ভিতরে সকল রকম খাবার কম বেশি থাকবে, যাতে করে আমাদের কোন খাবার ঘাটতি না হয়। যেমন কলা, ডিম, দুধ হচ্ছে সুষম খাবার। যা আমাদের খাবারে প্রতিদিন রাখা যায়। আর তাহলেই আমাদের শরীরে আর কোন রকম ক্যালসিয়ামের ঘাটাতি হবে না ইনশাআল্লাহ্‌।

শেষ কথা

প্রিয় পাঠক, আশা করি আমাদের এই পোষ্টি আপনাদের ভাল লাগবে। আমরা চাই আপনারা সুস্থ থাকুন, আপনাদের ভাল থাকাটাই আমাদের কাম্য। আপনাদের সকল রকমের মতামত ও পরামর্শ আমাদেরকে কমেন্ট করে জানাতে পারেন। আমরা পাঠকদের মতামতের গুরুত্ব অনেক বেশি দিয়ে থাকি। ধন্যবাদ। 

আরো পড়ুন-

১৫ আগস্ট মোট কতজন শহীদ হন-যে ঘটনা সবার জানা দরকার

ইমোশনাল লাভ মেসেজ- লাভ মেসেজ

গ্রামে লাভজনক ব্যবসা-অল্প পুঁজিতে যে সকল ব্যবসা করা যায়

ব্যবসায় উন্নতি করার উপায়, ব্যবসায় উন্নতি করার দোয়া

বাচ্চাদের খিচুড়ি খাওয়ার উপকারিতা-বাচ্চাদের খিচুড়ি রেসিপি

চাপা কষ্টের স্ট্যাটাস,উক্তি, বাণী ও কবিতা

বন্ধু নিয়ে কষ্টের স্ট্যাটাস, উক্তি ও কবিতা

বিকাশে বিদ্যুৎ বিল দেওয়ার নিয়ম

বিদেশ থেকে টাকা পাঠানোর দ্রুততম মাধ্যম কোনটি

Leave a Comment