আলু দিয়ে ফর্সা হওয়ার উপায়

প্রাচীন কাল থেকে মানুষ রুপ চর্চা করে থাকে,যুগ যুগ থেকে আমরা আমাদের শরীরের প্রতি যত্ন নিয়ে থাকি।বিশেষ করে মেয়েরা তাদের রুপের যত্নের ব্যাপারে খুবি যত্নশীল। এবং এটা করা খুবি দরকারি।কারন একটু যত্নের অভাবে মেয়েদের ত্বক খুবি শুষ্ক দেখায়,এবং কিছু দিন এভাবে অযত্নে থাকলে খুব কম বয়সে ত্বকে বয়সের ছাপ পরে যায়। Alu diye forsha houyar upay

তাই আমাদের এই ব্যাপারে খুব সচেতন থাকতে হবে। ত্বকের যত্ন ঠিক মতো নিলে ত্বকে বয়সের ছাপ পরে না।তারুন্য সব সময় ধরে রাখা যায়। সৃষ্টিকর্তা আমাদের কে প্রকৃতির মাঝে সব রকম সমস্যার সমাধান দিয়ে রেখেছেন।আমাদের শুধু একটু খুঁজে নিতে হবে। প্রকৃতির মাঝে অনেক রকম উপাদান রয়েছে যার মাধ্যমে আমরা আমাদের ত্বকের যত্ন নিতে পারি। আসুন তাহলে আমরা যেনে নাই কিভাবে আলু দিয়ে ত্বকের যত্ন নিতে হয়।

আলু দিয়ে ত্বকের যত্ন

আমরা জানি আলু একটি আমিষ জাতীয় খাবার ,যা কিনা আমরা সব সব রকম তরকারিতে ব্যাবহার করতে পারি।তবে আলু দিয়ে যে ত্বকের যত্নে ব্যাবহার হয় তা আমরা অনেকেই জানিনা।আজকে আমরা জানবো আলু দিয়ে কিভাবে ত্বক ফর্শা করা হয়।আমরা অনেক সময় দোকান থেকে নানান রকম কসমেটিক কিনে থাকি,বা রং ফর্শা করারি ক্রিম ব্যাবহার করে থাকি।

যা কিনা অনেক রকম ক্ষতিকর ক্যামিক্যাল দিয়ে তৈরি করা হয়ে থাকে।যা ব্যাবহারে আমাদের ত্বক ফর্সা হওয়ার পরিবর্তে ত্বকের অনেক ক্ষতি হয়ে থাকে।মেয়েদের মুখের ত্বক অনেক নরম ও কমল হয়ে থাকে ,যা কিনা ক্যামিক্যাল ব্যাবহারের ফলে সাময়িক ফর্সা দেখায় কিন্তু পরে তা আগুনে পোড়া দাগের মতো দেখা যায়।যা দেখতে খুবি খারপ দেখা যায়।

সেই দাগ গুলো পরে আর কনো ভাবেই দূর করা যায় না।তাই আমাদের বাজারের কেনা ক্রিম ব্যাবহার করা থেকে সাবধান থাকতে হবে।আলু দিতে ত্বক ফর্সা করতে আমরা দুটি ভাবে ব্যাবহার করবো যেমনঃ

  1. ম্যাসাজ করা
  2. প্রলেপ দেয়া

ম্যাসাজ করা

  • প্রথমে আমরা একটি বড় সাইজের আলু ভালো করে ধুয়ে নেব
  • তারপর আলুটিকে আমরা স্লাইস করে কেটে নেব।
  • এখন স্লাইস করা আলু গুলোকে মুখের উপর সুন্দর করে বসিয়ে দেব।
  • এরপর এভাবে ২০ মিনিট অপেক্ষা করবো।
  • তারপর আলু গুলোকে তুলে নিয়ে হালকা গরম পানি দিয়ে মুখ দুয়ে নেবো 
  • এই পর্যায়ে মুখের আদ্রতা কমে যাবে,মুখের স্কিন টান টান হয়ে যাবে,তখন মুখে সাধারন কনো ক্রিম ব্যাবহার করে নিলেই হবে।                                                                                                                             এর পরে আমরা যাবো আমাদের দ্বিতীয় ধাপে।এই ধাপের জন্যে আমাদের যা করনীয় তাহলোঃ
  • প্রথমে মুখ ভাল করে ধুয়ে নিতে হবে,এবং নরম কাপড় বা টিস্যু প্যেপার দিয়ে মুখ মুছে নিতে হবে।
  • এখন আমরা একটি বড় সাইজের আলু ভালো করে ধুয়ে নেব।
  • তারপর আলুটিকে একটি ব্যালেন্ডারের মাধ্যমে ভালো করে ব্যালেন্ড করে নেব।
  • এবং পুরো মুখে ভালো করে আলু দিয়ে বানানো মিশ্রনটি ভাল করে লাগিয়ে নিব।
  • এখন অপেক্ষা করতে হবে কমপক্ষে ৩০ মিনিট।
  • তারপর কুসুম গরম পানি দিয়ে মুখ মুছে নিতে হবে,

এখন আমাদের প্রধান কাজ গুলো সেষ,এখন আমাদের যা করতে হবে তাহলো,মখের শুশকভাব দূর করতে আমাদের লাগবে একটি এলোভেরা পাতা। এলোভেরা টি আমরা প্রথমে চার পাশ ভাল করে ছারিয়ে নেবো।তার পরে ভেতরের জেলি নিয়ে মুখের ত্বকে ভালো করে ঘষতে হবে।চখের চার পাশে দিয়ে ভালো করে ঘষতে হবে। এর পরে মুখ ভালো করে আবারো দুয়ে নিতে হবে।

তাহলেই আমাদের সকল কার্যক্রম সেষ।এভাবেই আমাদের করতে হবে কয়েক সপ্তাহ।তাহলেই আমরা ফিরে পাবো আমাদের কাঙ্ক্ষিত ফলাফল। এভাবে কয়েক সপ্তাহ এই নিয়ম মাফিক মুখের বাঁ  শরীরের যত্ন নিলে আশা  করা যায় যে ত্বক স্থায়ি ভাবে ফর্সা হবে ইনশাআল্লাহ্‌।

শেষ কথা

আশা করি আমাদের এই পোষ্টটি আপনাদের ভালো লাগেছে,এরকম আরো উপকারি পোষ্ট পেতে আমাদের শাথেই থাকুন।

আরো পড়ুন-

পল্টিবাজ নিয়ে উক্তি,স্ট্যাটাস ও কবিতা

পিছু টান নিয়ে উক্তি,স্ট্যাটাস ও কবিতা

রোদেলা দুপুর নিয়ে ক্যাপশন,স্ট্যাটাস ও কবিতা

মেয়েদের রাগ নিয়ে উক্তি,স্ট্যাটাস ও কবিতা

Leave a Comment